All Country News :

web banner

Outsourcing Training


সবচেয়ে জনপ্রিয়

Facebook Page

Twitter Follow

ইংলিশ ভার্সন

/ Popular News
প্রকাশিত তারিখ : June 25, 2019 | আপডেট সময়: 9:58 PM

135 Views

ঘরে বসে আয় অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং প্রোগ্রাম থেকে

আপনি কেন এফিলিয়েট মার্কেটিং করবেন

ফ্রিল্যান্সিং, আউটসোর্সিং বা ঘরে বসে আয় করতে চান, এমন লোকের অভাব নেই। বিশেষ করে তরুণ প্রজন্ম এদিকে বেশি ঝুঁকছেন। পড়াশোনা বা চাকরির পাশাপাশি ঘরে বসে আয়ের একটি উৎস হতে পারে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি?

প্রযুক্তিনির্ভর এই বিশ্বে মানুষের কেনাকাটার জন্য এখন আর বাইরে বের হওয়ার প্রয়োজন নেই। বাসা বা অফিসে বসেই ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিভিন্ন ই কমার্স সাইট থেকে কেনাকাটা করতে পারেন। অনলাইনে অর্ডারকৃত পণ্য ক্রেতার হাতে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পৌঁছে দেয় ইকমার্স প্রতিষ্ঠান। ই কমার্স সাইটগুলো তাদের পণ্যের প্রসারের উদ্দেশ্যে অ্যাফিলিয়েট সুবিধা দিয়ে থাকে। আর মার্কেটাররা এই সুবিধাকে কাজে লাগিয়ে নিজেরা মার্কেটিং করে আয় করে। এটাই হলো অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং। সহজে বলা যায়, আপনি অনলাইনে কোনো পণ্য বিক্রি করতে চাইলে সে প্রতিষ্ঠান আপনাকে তাদের পণ্যের একটা লিংক দিবে। আপনার দেয়া লিংকের মাধ্যমে কোন গ্রাহক যদি তাদের ওয়েবসাইটে ঢুকে এবং পণ্য ক্রয় করে, তাহলে ওই প্রতিষ্ঠান আপনাকে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ কমিশন দেবে। এই কমিশনের মাধ্যমে অর্থ আয় করার মাধ্যকেই বলা হয় অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং।

অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং শিখতে ভিজিট করুন।

অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের জন্য প্রচলিত অনেকগুলো মার্কেটপ্লেস থাকলেও অ্যামাজান অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংকেই পছন্দের তালিকায় প্রথম স্থানে রাখেন বেশিরভাগ মার্কেটার। কেননা বিশ্বের সবচেয়ে বড় ই কমার্স সাইট অ্যামাজন ডট কম (Amazon.com)। বিশ্বে সম্ভবত এমন কোন প্রোডাক্ট নেই যা অ্যামাজনে নেই।

যেভাবে শুরু করবেন
বেশ কয়েকভাবে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ে কাজ শুরু করতে পারেন- সোশ্যাল সাইটে লিংকগুলো শেয়ারিংয়ের মাধ্যমে, ল্যান্ডিং পেইজ তৈরির মাধ্যমে, ব্লগ সাইট বা ওয়েবসাইট তৈরির মাধ্যমে। সবচেয়ে ভালো পদ্ধতি হলো ওয়েবসাইট তৈরি করে কাজ করা। তবে গতানুগতিক ওয়েবসাইট থেকে এ ওয়েবসাইটের ধরন একটু আলাদা হবে। অর্থাৎ আপনি একটি নির্দিষ্ট সময় এবং নির্দিষ্ট পরিমাণ বিনিয়োগ করে রাখবেন এবং পরবর্তীতে সক্রিয়ভাবে কাজ না করা সত্ত্বেও আপনি আয় করতে থাকবেন। অ্যামাজন নিশ সাইট নিয়ে কাজ করে অনেকেই আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হচ্ছে। অনেকে মাসে কয়েক হাজার ডলারও ইনকাম করছে।

নিশ সাইটের জন্য যা দরকারঃ
১। কি-ওয়ার্ড রিসার্চ
২। একটি ডোমেইন নাম নির্বাচন করা ও হোস্টিং সেট আপ
৩। ওয়ার্ডপ্রেস ইনস্টল
৪। মানসম্মত কনটেন্ট
৫। ভাল মানের ব্যাকলিংক তৈরি করা
৬। সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং
৭। দরকারি পেজ সেটআপ
৮। কাঙ্খিত কনভার্সন রেট

প্রডাক্ট নিবাচনের সময় যেসব বিষয় খেয়াল করতে হবে:

১। আপনার মেইন নিশ/ কি-ওয়ার্ড এর সাথে মিল রেখে পণ্যের ক্যাটাগরি নির্বাচন করা।
২। নিশ এর জন্য পণ্য বাছাই করা।
৩। পণ্যের রিভিউ
৪। পণ্যের চাহিদা
৫। বিক্রির উপর আপনার কমিশন

কি-ওয়ার্ড গুলো যেভাবে নির্বাচন করতে পারেন:
Product Name/Keyword + Review
Product Name/Keyword + Reviews
Best + Product Name/Keyword
Cheap + Product Name/Keyword

অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং শিখতে ভিজিট করুন।

কোন প্রডাক্ট ক্রয় করতে সাধারণত মানুষ যেভাবে সার্চ করে :
Best/Top Rate + Product Name
Cheap + Product Name
Quality + Product Name
Product Name + For Sale
Product Name + Review/Reviews
Product Name + Coupon
Where Can I Buy + Product Name
Buy + Product Name
Best + Product Name + Review
Best + Product Name + Online
Best + Product Name + Year
VS/ Or/ Compare to + Product Name
তাই Best + Product type কি-ওয়ার্ডটা নিশ সাইটের প্রধান কীওয়ার্ড হিসেবে নেয়া বেশি যুক্তিযুক্ত।

কনটেন্ট পাবলিশ করা
কনটেন্ট যদি নিজে লিখতে পারেন তবে খুব ভালো। না পারলে কনটেন্ট প্রোভাইডার থেকে লেখা নিতে পারেন।

অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং শিখতে ভিজিট করুন।

সাধারণত নিশ সাইটের জন্য নিম্নোক্ত কনটেন্টগুলো হলেই হবে:
একটি মেইন আর্টিক্যাল/বায়িং গাইড: দুই হাজার থেকে তিন হাজার শব্দের মধ্যে
রিভিউ আর্টিক্যাল: দশ থেকে পনেরো টি, প্রতিটি আটশ থেকে বারশ শব্দের মধ্যে
ইনফরমেটিভ আর্টিক্যাল: সাত থেকে দশটি, প্রতিটি পাঁচশ থেকে বারশ শব্দের মধ্যে
মোটামুটি এই কয়েকটি আর্টিক্যাল হলেই যথেষ্ট।

কোন লেখার ৫০% মার্কেটিং বা আকৃষ্ট করার জন্য শিরোনাম আকর্ষণীয় হওয়া জরুরি। কী-ওয়ার্ড দিয়ে লেখা শুরু করতে হবে এটাও SEO friendly হওয়ার একটা অংশ।

SEO ভাল মানের Link Building তৈরি করা :
ভাল মানের লিঙ্ক গুগল সহজে র‌্যাংঙ্কিং করে। এক কথায় যে নিশ সাইটের যত লিঙ্ক থাকবে গুগল তার সার্চ রেজাল্টে বেশি দেখাবে। যদি আপনার ভাল মানের ব্যাক লিঙ্ক থাকে তাহলে কেউ আপনার নিশ প্রডাক্ট লিখে সার্চ করলে আপনার সাইট সে দেখতে পাবে। গুগলের ৬৫% র‌্যাংঙ্কিং ফ্যাক্টরস ব্যাক লিঙ্ক এর সাথে সম্পর্কিত, যখন অন্য সাইটের সাথে আপনার সাইটের লিঙ্ক থাকবে সেটাকে গুগল আপনাকে অথরিটি দিবে যা নিশ সাইট র‌্যাংঙ্কিং করতে সাহায্য করবে।

ভাল মানের লিঙ্ক বিল্ডিং করতে হলে আপনি নিচের সাইট গুলোতে লিঙ্ক করতে পারেন :
Web 2.0 Sites
Article Directories
Social Media Sites
Social Bookmarking sites
Q&A Sites
Quality Web Directories
Forum posts in niche specific forums
Photo sharing sites
Infographic creation and distribution
Guest Posts
Blog outreach
Resource page link building

অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং শিখতে ভিজিট করুন।

Our Office Address:104,Capital Super Market,1st Floor Room-43,Green Road, (আনন্দ সিনেমা হলের ও ছন্দ সিনেমা হলের বিপরীত পাশে, এবং কাশুন্দী রেস্তোঁরা এর বিপরীত পাশে), Farmgate, Tejgaon, Dhaka, Bangladesh 1215

Phone Number: 01537587949 ; 01627290026

Website:https://www.outsourcingall.com/

আপনার মতামত লিখুন :

[প্রিয় পাঠক, আপনিও এফ টিভি নিউজ অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রাজনীতি, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-ftvnewsbd@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
Facebook-Boost-Service

আরও পড়ুন